গাঁজা সেবনের ৭ প্রভাব, যা আপনি নাও জানতে পারেন

গাঁজা সেবনের বিষয়টি নিয়ে অনেকেরই সঠিক জ্ঞানের অভাব রয়েছে। আর এ কারণে ক্ষতিকর এ নেশাতে অনেকেই আচ্ছন্ন হয়ে পড়েন। যদিও কিছু বিষয় জানা থাকলে এ নেশা থেকে দূরে থাকা সম্ভব। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ম্যানস ফিটনেস ডট কম।

১. এটি রক্তবাহী শিরা ধ্বংস করে
গাঁজার ধোঁয়া কতটা ক্ষতি করে তা অনেকেরই জানা নেই। গবেষকরা জানাচ্ছেন, এটি রক্তবাহী শিরার ওপর ব্যাপক ক্ষতিকর প্রভাব বিস্তার করে। আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, তারা ইঁদুরের ওপর গাঁজার ধোঁয়ার প্রভাব পরীক্ষা করে জানতে পেরেছেন যে, এটি রক্তবাহী শিরার মারাত্মক ক্ষতি করে। মাত্র এক মিনিট গাঁজার ধোঁয়াতে থাকলে তা রক্তবাহী শিরার ওপর কমপক্ষে ৯০ মিনিট ক্ষতিকর প্রভাব বিস্তার করে। এতে রক্ত পরিবহন বাধাপ্রাপ্ত হয়।

২. টেস্টিকুলার ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়
পুরুষের টেস্টিকুলার ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকাংশে বাড়িয়ে দেয় গাঁজা। ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার এক গবেষণায় দেখা গেছে, গাঁজা সেবনে ব্যাপকভাবে বেড়ে যায় ক্যান্সারের আশঙ্কা।

৩. স্বল্পমেয়াদে স্মৃতিশক্তি লোপ
গাঁজা সেবনকারীদের প্রায়ই নানা বিষয় ভুলে যেতে দেখা যায়। আর এর কারণ অন্য কিছু নয়, গাঁজার প্রভাব। যুক্তরাষ্ট্রের নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির গবেষকরা জানিয়েছেন, গাঁজা সেবনকারীদের মস্তিষ্কে কিছুটা অস্বাভাবিকতা দেখা যায়। আর এ কারণে তাদের কিছু স্মৃতিও স্বল্পমেয়াদে হারিয়ে যায়। বেশিমাত্রায় গাঁজা সেবনে মস্তিষ্কের এ ক্ষতি স্থায়ী হয়ে যায়, যা আর ভালো হয় না।

৪. সৃজনশীলতা নষ্ট করে
বহু মানুষেরই ধারণা গাঁজা সৃজনশীলতা বৃদ্ধি করে। যদিও এ ধারণা ভুল বলেই জানাচ্ছেন নেদারল্যান্ডসের গবেষকরা। এটি তাদের সৃজনশীলতা বাড়ায় না বরং কমিয়ে দেয়।
৫. মস্তিষ্কের কোষ ধ্বংস করে
গাঁজা মস্তিষ্কের ওপর স্থায়ী প্রভাব ফেলে মস্তিষ্কের কোষ ধ্বংস করে। এ কারণে তা মানুষকে অস্বাভাবিক করে দেয়। দীর্ঘ ২০ বছরের গবেষণায় এ বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছেন গবেষকরা।

৬. সামাজিকতায় প্রভাব
গাঁজা নানাভাবে শুধু শরীরের ওপরই প্রভাব বিস্তার করে না, এটি মানুষের আচার-আচরণের ওপরেও প্রভাব বিস্তার করে। এ কারণে গাঁজাসেবীর নানা আচরণগত বিষয় অন্যরা বুঝতে পারে। আর এতে সামাজিকতায়ও প্রভাব বিস্তার করে। ফলে গাঁজাসেবী অনেকটা একঘরে হয়ে যায়।

৭. জীবনে সাফল্য লাভে অন্তরায়
গাঁজাসেবীর দেহে নানা ধরনের প্রভাব পড়ে। এতে স্মৃতিশক্তি যেমন ধ্বংস হয় তেমন মানসিক স্থীরতাও আসে না। এ কারণে গাঁজাসেবী কোনো বিষয়ে স্থীর হতে পারে না। এতে তার জীবনের সাফল্যও বাধাগ্রস্ত হয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


11 views